Hesperian Health Guides

স্বাস্থ্যের জন্য পায়খানা (স্বাস্থ্যব্যবস্থা)

ব্যক্তি ও পরিবারের জন্য পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার মতোই এলাকার পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা একই রকম গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্যব্যবস্থা মানে গণ পরিচ্ছন্নতা — পরিষ্কার ও নিরাপদ পায়খানা ব্যবহার করা, জলের উৎস পরিষ্কার রাখা, এবং নিরাপদে আবর্জনা বর্জন করা আবর্জনা, চিকিৎসা সামগ্রীর বর্জ্য, এবং দূষণ - দেখুন)। দুর্বল স্বাস্থ্যব্যবস্থা প্রচুর পরিমাণে অপ্রয়োজনীয় অসুস্থ্যতা ও মৃত্যুর কারণ ঘটায়।

 বিভিন্ন বয়সের পুরুষ ও নারী দলীয় আলোচনা করছে, কেউ কেউ তাদের সন্তানসহ, একজন একটি ক্রাচসহ এখানে এসেছে

স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নতির লক্ষ্যে কোন জনগোষ্ঠীর উদ্যোগের উচিত জনগণ তাদের প্রাত্যহিক জীবনে যে চ্যালেঞ্জের সম্মূখীন হচ্ছে তা কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করা। দারিদ্র এবং যথেষ্ট পরিমাণে জলে প্রবেশগম্যতার অভাব প্রায়ই জনগণকে তাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নতি করায় অসুবিধায় ফেলে।

স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নতির লক্ষ্যে কোন জনগোষ্ঠীর উদ্যোগের উচিত জনগণ তাদের প্রাত্যহিক জীবনে যে চ্যালেঞ্জের সম্মূখীন হচ্ছে তা কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করা। দারিদ্র এবং যথেষ্ট পরিমাণে জলে প্রবেশগম্যতার অভাব প্রায়ই জনগণকে তাদের স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নতি করায় অসুবিধায় ফেলে।

এলাকাবাসীর চাহিদা ও সম্ভাব্য সমাধানের আলোচনায় নারীদেরকে অন্তর্ভূক্ত করুন। নারীরা বেশীরভাগ সময়েই শিশু ও ঘরের যত্ন নিয়ে থাকে, সুতরাং তারা হয়তো স্বাস্থ্যব্যবস্থা ও জলের সমস্যাগুলোকে উপলব্ধি করতে পারবে যা পুরুষরা দেখতে পায় না। সবাই যখন একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় জড়িত থাকে এবং স্বাস্থ্যব্যবস্থার উন্নতি করতে একত্রে কাজ করে তখন সকলেই উপকৃত হয়।

মানুষের বর্জ্য সামলাতে পায়খানার ব্যবহার

যখন মানুষের বর্জ্য (বিষ্ঠা) ভালভাবে সামলানো না হয়, তখন তা জল, খাবার, এবং মাটিকে জীবাণু দ্বারা দূষিত করে, এবং ফলে ডাইরিয়া ও অন্যান্য মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দেয়। পায়খানা ব্যবহারের ফলে জীবাণু পরিবেশের মধ্যে যেতে পারে না এবং পুরো জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যকে রক্ষা করে।

 একজন নারী তার পায়খানার কাছাকাছি একটি কল থেকে হাত ধুচ্ছে

পায়খানা তৈরী ও ব্যবহার করার একমাত্র কারণ স্বাস্থ্য নয়। মানুষ আরও চায়:

  • একান্ততা: মাটিতে একটি গভীর গর্তের মতোই সাধারণ একটি পায়খানা হতে পারে। কিন্তু একান্ততার প্রয়োজনীয়তার কারণেই একটি পায়খানার একটি দরজা বা পর্দাযুক্ত একটি ছাউনি থাকা গুরুত্বপূর্ণ। ছাউনিগুলো স্থানীয় উপকরণ থেকেই তৈরী করা যায়, বা এগুলোকে কংক্রিট দিয়ে তৈরী করা যায়।
  • নিরাপত্তা: একটি পায়খানাকে নিরাপদ হতে হলে এটিকে খুব ভালভাবে নির্মাণ করতে হবে এবং এটিকে একটি নিরাপদ জায়গায় থাকতে হবে। ভেঙ্গে পড়ার বিষয় নিয়ে যদি কেউ চিন্তিত থাকে তবে কেউই সেই পায়খানা ব্যবহার করবে না। এবং পায়খানাটি যদি বাড়ি থেকে অনেক দূরে হয়, বা একটি নির্জন স্থানে হয় তবে নারীরা হয়তো তা ব্যবহার করতে নিরাপদ বোধ করবে না।
  • স্বাচ্ছন্দ্য: মানুষ একটি পায়খানা ব্যবহার করতে আগ্রহী হবে যদি পায়খানাটিতে বসার জন্য একটি আরামদায়ক জায়গা থাকে, এবং ভিতরে দাঁড়াবার জন্য যথেষ্ট বড় একটি ছাউনি থাকে। তারা হয়তো একটি পায়খানা ব্যবহার করতে আগ্রহী হবে যদি সেটি ঘরের কাছে থাকে এবং বায়ু, বৃষ্টি, বা তুষার থেকে রক্ষার জন্য ছাউনি দেয়া থাকে।
  • পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা: যদি একটি পায়খানা নোংরা বা গন্ধময় থাকে তবে কেউই তা ব্যবহার করতে চাইবে না। একটি পায়খানা অবশ্যই পরিষ্কার হবে হবে যাতে জীবাণু ছড়ানো রোধ করা যায়। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার কাজগুলো যদি ভাগ করে করা হয় তবে পায়খানাগুলো যে ঠিকমতো ব্যবহৃত হচ্ছে এবং এগুলো যত্ন নেয়া হচ্ছে তা নিশ্চিত করতে সাহায্য করবে।
  • মর্যাদা: পরিপাটিভাবে রাখা একটি পায়খানা এর মালিকের জন্য সম্মান এবং মর্যাদা বয়ে আনে। এটি হয়তো মানুষকে একটি পায়খানা তৈরীর জন্য অর্থ ও সময় ব্যয় করার জন্য উৎসাহিত করতে পারে।

কোথায় একটি পায়খানা তৈরী করা যাবে

কোথায় পায়খানা তৈরী করা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবার সময়, নিশ্চিত হয়ে নিন যে এটি কোন জলের উৎস যেমন নদী, কূয়ো, বা ঝরণাগুলোকে দূষিত না করে। একটি পায়খানাকে যে কোন জলের উৎস থেকে কমপক্ষে ২০মিটার দূরে অবস্থিত হতে হবে।

কোথায় পায়খানা তৈরী করা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবার সময়, নিশ্চিত হয়ে নিন যে এটি কোন জলের উৎস যেমন নদী, কূয়ো, বা ঝরণাগুলোকে দূষিত না করে। একটি পায়খানাকে যে কোন জলের উৎস থেকে কমপক্ষে ২০মিটার দূরে অবস্থিত হতে হবে।

  • গর্তের নীচটিকে ভূপৃষ্ঠের জল থেকে কমপক্ষে ২.৫ মিটার উঁচুতে থাকতে হবে।
  • আপনি যদি পায়খানার জন্য একটি গর্ত খোঁড়েন এবং মাটি খুব ভিজা থাকে, বা গর্তটি চট করে জলে ভরে যায়, তবে তা পায়খানা তৈরী করার জন্য একট ভাল জায়গা নয়। জীবাণু এবং মানুষের বর্জ্য ভূপৃষ্ঠের জলতে দূষিত করবে।
  • প্লাবিত হয়ে যায় এমন স্থানে গর্ত পায়খানা নির্মাণ করবেন না।
  • যখন গর্ত পায়খানা থেকে ভূপৃষ্ঠের জলের দূষিত হবার ঝুঁকি থাকে তখন একটি মাটির উপরে তৈরী পায়খানার কথা বিবেচনা করুন। ভূপৃষ্ঠের জলের দূষণ হবার ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে যদি পায়খানা নির্মাণ না করার আর কোন সুযোগ না থাকে, তবে কাছাকাছি থাকা কোন কূয়ো থেকে নীচের দিকে পায়খানাটি নির্মাণ করুন যাতে জীবাণুগুলো কূয়ো থেকে দূরে প্রবাহিত হয়ে যায়।
ভূগর্ভস্থ্য জলের কাছে পৌঁছাতে পারে এমন গভীর কূয়োর গভীরতার পাশাপাশি ভূগর্ভস্থ জলের থেকে অনেক অগভীর একটি পায়খানার গভীরতা দেখানো হয়েছে
ভূপৃষ্ঠের জল হলো সেই জল যা মাটিতে শুষে যায় এবং ভূগর্ভে প্রবাহিত হয়। একটি পায়খানা নির্মাণের সময় নিশ্চিত হোন যে গর্তটি ভূগর্ভস্থ্য জলকে দূষিত করার মতো এতো বেশী গভীর না হয়।

পায়খানার ধরন

বিভিন্ন ধরনের পায়খানা আছে, এবং কোন একটি ধরন সকল জনগোষ্ঠী বা গৃহস্থালীর জন্য সঠিক হবে তা নয়। কী ধরনের পায়খানা তৈরী করা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবার জন্য যারা এগুলোকে ব্যবহার করবে তাদের চাহিদার কথা এবং সেটি তৈরী করার জন্য আপনার যে পরিমাণ জায়গা আছে সে বিষয়ে চিন্তা করুন। এছাড়াও ভাবুন যে আপনি ও আপনার পরিবার একটি জৈব-সার প্রস্তুতকারী পায়খানা ব্যবহার ও রক্ষণাবেক্ষণ করতে চান কিনা; যদি না চান তবে একটি গর্ত পায়খানাই হয়তো আপনার জন্য সবথেকে ভাল হবে।

কোন নিখুঁত পায়খানা নেই। প্রতিটারই তার নিজস্ব অসুবিধা আছে। কিন্তু এই অধ্যায়ে আলোচনা করা ৩টি ধরনের পায়খানা পরিবেশ ও মানুষের কম ক্ষতি করে একটি জনগোষ্ঠীকে পরিষ্কার ও স্বাস্থ্যবান রাখার জন্য ভাল। এই ৩ ধরনের পায়খানা কোন জল ব্যবহার করে না।

বেশীরভাগ জল ঢালার পায়খানাগুলো সমস্যাগুলোকে (বিষ্ঠা ও জীবাণু) এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সরিয়ে দেয়, এগুলো তা করার মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণে জলকে দূষিত করে (নীচে দেখুন), এবং এগুলো মানুষের বিষ্ঠাকে নিরাপদ করে না। মলত্যাগ করার পর জল দিয়ে পরিষ্কার করা যায় এমন অনেক নিরাপদ পায়খানা আপনি নির্মাণ করতে পারেন যেগুলো পরিবেশকে দূষিত করে না, উদাহরণস্বরূপ, জল ঢালার পায়খানা। কিভাবে এই পায়খানা তৈরী করতে হয় তা শিখতে পরিবেশ স্বাস্থ্য বিষয়ে জনগোষ্ঠীর জন্য একটি সহায়িকা-এর অধ্যায় ৭ দেখুন।

 হোটেল থেকে গ্রামের নদীতে পাশে বর্জ্য ফেলা হচ্ছে যেখানে মানুষ ও প্রাণী ধোয়ানো হচ্ছে আর ব্যবহারের জন্য জল নিয়ে যাওয়া হচ্ছে

জল ঢালার পায়খানা ও পয়ঃপ্রণালী

জল ঢালার পায়খানাগুলো নলের মধ্য দিয়ে বর্জ্য সরিয়ে নেবার জল ব্যবহার করে যাকে পয়ঃপ্রণালী বলা হয়। এগুলো স্বাস্থ্যর উন্নতি করে, বিশেষ করে ঘনবসতিপূর্ণ শহুরে এলাকায়, এবং এধরনের পায়খানাগুলোই মানুষ বেশী পছন্দ করে।

কিন্তু জল ঢালার পায়খানাগুলোর অনেক সমস্যা আছে যেগুলো হয়তো প্রতীয়মান নয়। পুনরায় ব্যবহারের জন্য জলপথে ফেরত যাবার জন্য জল থেকে জীবাণু অপসারণ করতে নর্দমাগুলোকে অবশ্যই প্রক্রিয়াজাত করতে হবে। এটি ব্যয়বহুল, তাই বেশীরভাগ সময়ই নর্দমার ময়লাগুলো সঠিকভাবে প্রক্রিয়াজাত করার আগেই নদী, হ্রদ বা সমুদ্রে ফেলা হয়। এর ফলে নর্দমার ময়লা থেকে আমাদের জল ব্যবস্থায় বা আমাদের প্রতিবেশীদের মধ্যে জীবাণু ছড়ায়।

নর্দমার ময়লা প্রক্রিয়াজাত করতে ব্যবহৃত অনেক রাসায়নিক দ্রব্যই আমাদের পানীয় জলের উৎস এবং মানুষ যেখানে বাস করে ও চাষাবাদ করে সেই জমিগুলোকে দূষিত করে। জল ঢালার পায়খানা পান ও কৃষিকাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় নির্মল জলের অপচয় করে। যেখানে প্রচুর সংখ্যক লোকের পান করার জলের অভাব রয়েছে, সেখানে এতো পরিমাণ জল নর্দমায় ঢেলে দেয়া অন্যায়।

বন্ধ গর্তের পায়খানা

NWTND was Page 10-1.png

একটি বন্ধ গর্তের পায়খানায় একটি গর্তযুক্ত পাটাতন থাকে এবং যখন এটি ব্যবহার করা না হবে তখন ঢেকে রাখার জন্য একটি ঢাকনা। এই পাটাতনটি কাঠের, কংক্রিটের, বা মাটি দিয়ে লেপা গাছের গুঁড়ি হতে পারে। কংক্রিটের পাটাতন জল ঢুকতে দেয়না এবং এগুলো সহজেই পরিষ্কার করা যায় বিধায় স্বাস্থ্য সমস্যা কমায়। বন্ধ গর্তের পায়খানার একটি আস্তরণ বা কংক্রিটের বলয় থাকা উচিত যাতে পাটাতনটি বা গর্তটি ভেঙ্গে না পড়ে। পরবর্তী পৃষ্ঠাটি দেখুন।

গন্ধ ও মাছির সংখ্যা কমাতে একটি বায়ু নির্গমণ নল যুক্ত করা (যাকে বায়ু নির্গমণ নলযুক্ত উন্নত গর্ত বা ভিআইপি পায়খানা বলা হয়) এমন একটি উন্নতি যা গর্ত পায়খানা ব্যবহারকে আরও বেশী মনোরম করে তোলে।

২ মিটার গভীর একটি বন্ধ গর্ত পায়খানা ভরে যেতে ৫জনের একটি পরিবারের ৫বছর সময় লাগবে।

গর্ত পায়খানার একটি সমস্যা হলো যে একবার এটি ভরে গেলে পায়খানাটি আর ব্যবহার করা যায় না। যদিও, আপনি ছাউনিটি অন্য জায়গায় সরিয়ে এবং ঐ জায়গায় একটি গাছ লাগিয়ে একটি পূর্ণ — কিন্তু আস্তরণযুক্ত নয় — একটি গর্তের আবর্জনার পূর্ণ সদ্ব্যবহার করতে পারেন। অথবা সামান্য ভিন্ন দৈনিক রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে, আপনি একটি জৈবসার তৈরীর পায়খানা নির্মাণ করে আস্তরণযুক্ত গর্ত পায়খানার বর্জ্যগুলোকে আপনি ব্যবহারযোগ্য জৈবসারে পরিণত করতে পারেন। একটি জৈবসার তৈরীর পায়খানা খুবই সাধারণ হতে পারে। পৃষ্ঠা ১৩ দেখুন।

একটি বন্ধ গর্ত পায়খানা নির্মাণ করতে

 একটি বন্ধ গর্ত পায়খানা নির্মাণ করতে
 একটি বন্ধ গর্ত পায়খানা নির্মাণ করতেt
  1. এমন একটি জায়গা পছন্দ করুন যা মানুষের যাওয়ার জন্য সহজ হবে এবং যেখানে জলের উৎসকে দূষিত করার কোন ঝুঁকি থাকবে না
  2. আড়াআড়িভাবে এক মিটারের কম এবং কমপক্ষে ২ মিটার গভীর একটি গর্ত খুড়ুন। মাটি যদি খুবই বালুময় হয় তবে আপনি গর্তটিকে খালি তেলের ড্রাম একটির উপর আর একটি বসিয়ে বা সিমেন্টের ইট বসিয়ে আস্তরণ দিয়ে দিতে পারেন যাতে গর্তটি ধ্বসে না যায়।
  3. গর্তের উপরের অংশে কাঠের গুঁড়ি, পাথর, ইট, বা কংক্রিটের চাকতি বিম, বা অন্য যে কোন উপকরণ দ্বারা আস্তরণ দিন যাতে এটি পাটাতনটির ভর সহ্য করতে পারে এবং গর্তের দেয়াল ভেঙ্গে না পড়ে।
  4. একটি পাটাতন ও একটি ছাউনি তৈরী করে গর্তটির উপর বসান। পাটাতনটি কংক্রিট বা কাঠের গুঁড়ি বা বাঁশ ও কাদামাটির মিশ্রণের মতো স্থানীয় উপকরণ দ্বারা নির্মাণ করা যায়। আপনি যদি পাটাতনটি কাঠ দ্বারা তৈরী করেন তবে এমন কাঠ ব্যবহার করুন যেগুলো সহজে পচন ধরে না।

কিভাবে একটি কংক্রিটের পাটাতন ও চাকতি বিম তৈরী করা যায়

একটি ভাল করে তৈরী করা পাটাতন ও চাকতি বিম একটি গর্ত পায়খানা ভেঙ্গে পড়া থেকে রক্ষা করবে। একটি কংক্রিটের পাটাতন থাকলে পায়খান পরিষ্কার রাখা সহজ হয়।

একটি ২৫ কিলো সিমেন্টের থলিই একটি পাটাতন ও একটি চাকতি বিম নির্মাণের জন্য যথেষ্ট। দু‘টোকেই একসাথে বানানোই সহজ। মজবুত করার জন্য আপনার লোহার তার, ইট, এবং ছাঁচ বানানোর জন্য বোর্ড, এবং গর্তের ছাঁচ বানাতে চাবির ছিদ্রের আকারে কাটতে এক টুকরা কাঠ প্রয়োজন হবে। এখানে দেখানো পাটাতন ও চাকতি বিমটি চৌকোনা দেখানো হয়েছে কিন্তু আপনি গোলাকারও তৈরী করতে পারেন।


১। একটি প্লাস্টিকের টুকরা বা ব্যবহৃত সিমেন্টের ব্যাগ সমতল মাটির উপর রাখুন। এর উপরে ইট বা বোর্ড দিয়ে একটি ছাঁচ তৈরী করুন।
পায়খানার পাটাতন চাকতি বিম
 একটি পায়খানার পাটাতনের ছাঁচ
 একটি চাকতি বিমের ছাঁচ
১২০ সেমি লম্বা, ৯০ সেমি চওড়া, এবং ৬ সেমি উঁচু একটি পায়খানার পাটাতন নির্মাণ করুন। একটি কাঠের চাবির ছিদ্র সাদৃশ্য ছাঁচ বা পায়খানার ছিদ্র আকার তৈরী করার জন্য কয়েকটি ইট মাঝখানে রাখুন। ১৩০ সেমি লম্বা, বাইরের দিকে ১ মিটার লম্বা, এবং ভিতরের দিকে ৭০ সেমি চওড়া করে একটি চাকতি বিম নির্মাণ করুন।
২। এক ভাগ সিমেন্ট, ২ ভাগ সুরকি, তিন ভাগ বালু, এবং জল মিশিয়ে কংক্রিটের মিশ্রণ তৈরী করুন। কংক্রিটের মিশ্রণগুলোকে ছাঁচের মধ্যে ঢালুন যাতে এটি উপরের দিকে অর্ধেক পূর্ণ হয়।
 ২। এক ভাগ সিমেন্ট, ২ ভাগ সুরকি, তিন ভাগ বালু, এবং জল মিশিয়ে কংক্রিটের মিশ্রণ তৈরী করুন। কংক্রিটের মিশ্রণগুলোকে ছাঁচের মধ্যে ঢালুন যাতে এটি উপরের দিকে অর্ধেক পূর্ণ হয়।
 চাকতি বিমের ছাঁচে বেলচা দিয়ে কংক্রিট বসানো হচ্ছে
৩। ৩ মিমি মোটা লোহার তার ভিজা কংক্রিটের উপর বসান।
 arrows showing placement of wires for handles in concrete for toilet platform
৮ থেকে ১০ মিমি মোটা রড থেকে হাতল তৈরী করুন এবং সেগুলোকে কোণার দিকে বসান।
'পাটাতনের জন্য:
প্রতি দিকে ৪ থেকে ৬টি তার ব্যবহার করুন।
 arrow showing placement of wire in concrete for ring beam
চাকতি বিমের জন্য:
বিমের প্রতি পাশে তার বসান

৪। বাকি কংক্রিটগুলো এখন ঢেলে দিয়ে একটি কাঠের টুকরা দ্বারা সমান করে দিন।
আরও কংক্রিট ঢালা এবং পায়খানার পাটাতনটিকে মসৃণ করা
 আরও কংক্রিট ঢালা এবং চাকতি বিমটিকে মসৃণ করা
৫। কংক্রিট শক্ত হতে শুরু করলে (প্রায় ৩ ঘন্টা পর) চাবির ছিদ্রের ছাঁচটিকে তুলে ফেলুন। আপনি যদি ইটের ছাঁচ ব্যবহার করে থাকেন তবে, ইটগুলো সরিয়ে ফেলুন এবং গর্তটিকে একটি চাবির ছিদ্রের আকার দিন।
৬। কংক্রিটগুলোকে ভিজা সিমেন্টের বস্তা, ভিজা কাপড়, বা এক তা প্লাস্টিক দিয়ে ঢেকে দিন। দিনে বেশ কয়েকবার এটিকে ভিজান যাতে এটি ৭দিন পর্যন্ত ভিজা থাকে। এটিকে ভিজা রাখলে এটি অনেক ধীরে শুকাবে এবং অনেক দৃঢ় হবে।
 একজন পুরুষ ও নারী একটি শক্ত হয়ে যাওয়া চাকতি বিম বহন করছে
৭। কংক্রিটটি যখন সম্পূর্ণরূপে শক্ত হয়ে যাবে, তখন চাকতি বিমটিকে পায়খানা তৈরীর স্থানে নিয়ে যান। মাটি সমতল করুন, চাকতি বিমটিকে মাটিতে রাখুন, এবং এর ভিতরে গর্ত খুঁড়ুন। চাকতি বিমটিকে জায়গায় বসাতে এর বাইরের চারপাশ দিয়ে মাটি চাপা দিন। তারপর পাটাতনটিকে এর উপর বসান।
৮। কংক্রিট বা কাঠ দিয়ে গর্তটির জন্য একটি ঢাকনা তৈরী করুন। এটির একটি হাতল থাকতে পারে, বা এটিকে এমনভাবে তৈরী করুন যেন হাতে জীবাণু লাগা এড়াতে তা ব্যক্তির পা দ্বারা সরানো যায়।
 চারজন নারী একটি নতুন গর্তের উপর একটি পায়খানার ছাউনি বসাচ্ছে

জৈব সার তৈরীর পায়খানা

একটি জৈব সার তৈরীর পায়খানা মানুষের বিষ্ঠাকে ততক্ষণ পর্যন্ত সংরক্ষণ করে যতক্ষণ পর্যন্ত না এটি ভেঙ্গে গিয়ে জৈব সারে পরিণত হয়। মিশ্রণগুলো উত্তপ্ত হবে এবং যত দিন যাবে ততই এটি মারা সবচেয়ে কঠিন কেঁচোকৃমির ডিমসহ ক্ষতিকারক জীবাণুগুলোকে মেরে ফেলবে। প্রথমে জৈব সার তৈরীর পায়খানাকে একটি আজব ধারণা বলে মনে হতে পারে, কিন্তু যদি যথাযথভাবে ব্যবহার করা যায় তবে এগুলো একই সাথে মানুষের বিষ্ঠা সামলানো এবং মাটির মান উন্নয়ন করার একটি খুবই নিরাপদ উপায়।

১ মিটার গভীর এবং ১ মিটার আড়াআড়ি একটি গর্ত খুঁড়ুন। গর্তটির চারপাশে আস্তরণ বসান এবং একটি পাটাতন তৈরী করুন যেমনটি আপনি অন্য যে কোন গর্ত পায়খানার জন্য করবেন। কিন্তু ছাউনিটিকে সরানো যায় এমনভাবে তৈরী করুন।

একটি জৈব সার তৈরীর পায়খানা ব্যবহার ও এর রক্ষণাবেক্ষণ করতে

  • ব্যবহার করার আগে গর্তের মধ্যে শুকনো পাতা বা খড় ফেলুন। এগুলো বিষ্ঠাগুলোর পচন ধরায় সাহায্য করে।
  • প্রতিবার ব্যবহার পর ছাইয়ের সাথে একমুঠ মাটি মিশ্রণ করে বা শুকনো পাতা ফেলুন। এর ফলে গন্ধ কমে যাবে এবং বর্জ্যের কাঠামো ভেঙ্গে ফেলতে সাহায্য হয়।
  • প্লাস্টিক, টিন, বা অন্যান্য আবর্জনা পায়খানায় ফেলবেন না।
  • পাটাতনটিকে ঘন ঘন ঝাঁট দিন ও ধুয়ে পরিষ্কার করুন। সাবধান থাকুন যেন খুব বেশী জল বা পরিষ্কার করার রাসায়নিক গর্তের ভিতরে না যায়।
  • গর্তটি যখন প্রায় সম্পূর্ণ ভরে যাবে, তখন ছাউনি, পাটাতন, এবং চাকতি বিমটিকে সরিয়ে ফেলুন। (একটি ৫জনের পরিবারের একটি এক মিটার গভীর জৈব সার তৈরীর পায়খানা পূর্ণ করতে প্রায় এক বছর সময় নেবে।)
  • গর্তটিকে গাছের ডাল-পাতাসহ ১৫সেমি মাটির মিশ্রণ দ্বারা ভরে ফেলুন। কয়েক সপ্তাহ পর বর্জ্যগুলো থিতু হবে।
  • আরও মাটি ও গাছের ডাল-পাতা, জল দিন এবং একটি গাছ লাগান। ফলের গাছ ভাল জন্মাবে এবং এতে নিরাপদে খাওয়ার জন্য প্রচুর পরিমাণে ফল ধরবে।

একজন নারী একটি গর্ত পায়খানা ও তিনটি ফলের গাছের কাছে চারাগাছ লাগাচ্ছে

  • বিকল্পভাবে, জৈব সারগুলোকে খুঁড়ে বের করে অন্য গাছ বা খাদ্য শস্যকে উর্বর করতে ব্যবহার করা যায়, কিন্তু শুধুমাত্র যদি এর কাঠামো সম্পূর্ণরূপে ভেঙ্গে যায় তবেই। তাই এটিকে কমপক্ষে ১ বছর বসে থাকতে দিন এবং তখনই ব্যবহার করবেন যখন এটি গন্ধবিহীন ও ঝুড়ঝুড়ে মাটিতে পরিণত হবে।
  • ছাউনি, পাটাতন, এবং চাকতি বিমটিকে অন্য একটি জায়গায় নিয়ে যান, একটি গর্ত খুঁড়ুন এবং আবারও তা করুন।

অল্প জায়গাযুক্ত এলাকার জন্য একটি জৈব সার তৈরীর পায়খানা

যে সমস্ত জায়গায় মানুষ একে অন্যের খুব কাছাকাছি বাস করে এবং যাদের গর্ত পায়খানা তৈরীর জন্য অতিরিক্ত জায়গা নেই তাদের জন্য এই পায়খানা বেশ উপকারী। এটি একটি ঘরের ভিতরেও নির্মাণ করা যায় এবং এর থেকে তেমন গন্ধ বের হবার কথা না যদি এগুলো ভালভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা হয় এবং নিয়মিত এগুলোকে পরিষ্কার করা হয়।

এই পায়খানার জন্য, আপনাকে মূত্রগুলোকে অবশ্যই আলাদা করতে হবে, যাতে বিষ্ঠাগুলো শুকিয়ে যেতে পারে এবং দ্রুতই জৈব সারে পরিণত হতে পারে। মূত্রগুলোকে আলাদা করা হলেও গন্ধ কমে।

  1. একটি কাঠের বাক্স তৈরী করুন যাতে এর ভিতরে ৫ গ্যালনের একটি বালতি এঁটে যায়। এর উপরের অংশটিতে একটি ছিদ্রযুক্ত আসন প্রয়োজন হবে এবং বাক্সের পাশে কবজা লাগানো থাকবে যাতে বালতিটি বের করে ফেলা যায়।
  2. NWTND was Page 14-1.png

  3. মূত্র আলাদা করার একটি ছোট গামলা এর ভিতরে রাখুন। আপনি হয়তো এটি দোকান থেকে কিনতে পারবেন, বা যে কোন একটি প্লাস্টিকের জগের তলা ও পাশ কেটে এটিকে ছিদ্রের সামনে আটকে দিয়ে তৈরী করতে পারেন।
  4. একটি নলের এক মাথা পায়খানার গামলায় (বা প্লাস্টিকের জগের নলাকার মুখে) যুক্ত করুন যেটি মূত্রগুলোকে আলাদা করবে। নলের অন্য মাথাটি মূত্র সংগ্রহের জন্য ব্যবহৃত একটি জগের মধ্যে রাখুন।
  5. পায়খানার গামলার নীচে ৫ গ্যালনের একটি বালতি রাখুন যাতে করে এতে মল সংগ্রহ করা যায়।
  6. 5. একটি ঢাকনা থাকলে মাছি এড়ানো যাবে এবং গন্ধ কমানো যাবে।
 কাঠের বাক্স পায়খানাt
 পায়খানার গামলার নীচে একটি বালতি ও মূত্র সংগ্রহের জন্য একটি জগ

এই পায়খানাটি ব্যবহার ও রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য

যারা এই পায়খানাটি ব্যবহার করবে তাদের জন্য এটি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে শেখা গুরুত্বপূর্ণ।

  • ব্যবহারের আগে, বালতির মধ্যে এক পরত শুকনো পাতা বা খড় ফেলুন। এটি বালতিটিকে শুকনো রাখতে সাহায্য করবে।
  • প্রতিবার ব্যবহারের পর ছাই মিশ্রিত এক মুঠ মাটি বা শুকনো পাতা ফেলুন। এর ফলে গন্ধ কমতে এবং বিষ্ঠার কাঠামো ভাংতে সাহায্য হবে। প্লাস্টিক বা টিনের মতো কোন আবর্জনা পায়খানার মধ্যে ফেলবেন না। মূত্রসহ যে কোন তরল পদার্থ যাতে বালতিতে না যায় তা খেয়াল রাখুন। বালতির জিনিসগুলো যদি ভিজে যায় তবে আরও বেশী মাটি বা ছাই ব্যবহার করুন।
  • মূত্র নলের মধ্যে দিয়ে একটি পাত্রে সংরক্ষণের জন্য প্রবাহিত হয়। মূত্রগুলোকে জলের সাথে মিশিয়ে সার হিসেবে ব্যবহার করা যায়। সার হিসেবে ব্যবহার করতে ৩ ভাগ জলের সাথে ১ ভাগ মূত্র মিশিয়ে সপ্তাহে তিনবার পর্যন্ত গাছে দিতে পারেন।
 একজন লোক একটি বড় পাত্রের মধ্যে এক বালতি পায়খানা ফেলছেr
  • বালতিটি যখন মল দ্বারা ভর্তি হয়ে যাবে (৫জনের একটি পরিবারের জন্য প্রায় দু’সপ্তাহ) তখন এটিকে ঢাকনাসহ একটি বড় পাত্রে ঢেলে দিন। এখানেই এই বর্জ্যগুলো সংরক্ষিত হবে। যখন এই পাত্রটি পূর্ণ হয়ে যাবে তখন এটিকে ১ বছরের জন্য (একটি রৌদ্রোজ্জ্বল জায়গায়, যদি সম্ভব হয়) সংরক্ষণ করুন যতক্ষণ না বর্জ্যগুলো জৈব সারে পরিণত না হয়। এক বছর পরে, জৈব সারগুলোকে মাঠে, বাগানে, বা পাত্রে লাগানো গাছে ব্যবহার করা যায়। একটি পরিবারের হয়তো তাদের সকল বর্জ্য রাখার জন্য বেশ কয়েকটি বড় পাত্রের প্রয়োজন হতে পারে।
  • প্রতিবার আপনি বালতিটি খালি করার পর জীবাণু ধ্বংস করার জন্য এটিকে ক্লোরিনযুক্ত জলের সাহায্যে পরিষ্কার করুন।
  • পায়খানাটি যখন ব্যবহৃত না হবে, তখন বাক্সটির ঢাকনা বন্ধ করে রাখুন। এর ফলে গন্ধ কম হবে।


এগুলোর মতো জৈব সার তৈরী করার পায়খানা রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য বেশ কাজ করতে হয়। কিন্তু যথাযথভাবে ব্যবহার করা হলে এগুলো অনেক জায়গা না থাকা জনগোষ্ঠীর জন্য তাদের বিষ্ঠা সামলানোর একটি ভাল উপায়, এবং এমনকি এখান থেকে একটি মূল্যবান উপদানও তৈরী হবে।

শহুরে এলাকার জন্য জৈব সার তৈরীর পায়খানা

একটি ছোট এলাকাতে অনেক লোকের বসবাস মানেই অনেক পরিমাণ বিষ্ঠা, এবং প্রায়ই মানুষের বিষ্ঠা থেকে জীবাণু দ্বারা প্রচুর পরিমাণে অসুস্থ্যতা দেখা দেয়।

 একটি শিশু পায়খানায় বসে আছে

হেইতিতে সাসটেইনএবল অর্গানিক ইন্টিগ্রেটিড লাইভলিহুড (সয়েল) নামের একটি দল একটি শহুরে এলাকাতে বর্জ্যগুলোকে সম্পদে পরিণত করতে কাজ করে। সয়েল একটি কার্যক্রম চালু করেছে (সামান্য পারিশ্রমিকের বিনিময়ে জৈব সার তৈরী করার পায়খানা ভাড়া দিয়ে থাকে, এবং প্রতিটি বাড়ি থেকে প্রতি সপ্তাহে বর্জ্য সংরক্ষণ করে থাকে। এই বর্জ্য একটি জায়গায় গিয়ে ফেলা হয় যেখানে এগুলোকে মূল্যবান জৈব সারে রূপান্তর করা হয়, যা পরবর্তীতে বিক্রয় করা হয় বা খাদ্য উৎপাদনের জন্য ব্যবহার করা হয়।

সয়েল-এর কাজের বেশীরভাগই হচ্ছে জৈব সার তৈরীর পায়খানার নিরাপত্তার বিষয়ে জনগণকে শিক্ষিত করে তোলা। পায়খানা থেকে চুড়ান্ত উৎপাদন দেখানোর মাধ্যমে তারা সবথেকে ভালভাবে এই কাজটি করে। একবার মানুষ যখন নিজেরাই দেখে যে একসময় যা মানুষের বিষ্ঠা ছিল তা এখন পুষ্টিউপাদান সমৃদ্ধ জৈব সারে পরিণত হয়েছে, তখন তারা তাদেরকে অসুস্থ্য করে ফেলতো এমন জিনিসটিকে তাদের নিজেদের ও তাদের পরিবেশকে সাহায্য করে এমন একটি সম্পদে পরিণত করতে খুবই উদ্দীপিত হয়ে ওঠে।

এলাকাতে সবার জন্যই পায়খানার কাজ করা উচিত

যারা পায়খানা ব্যবহার করবে তাদের সকলের সাথেই কথা বলে দেখুন যে কী করলে তাদের জন্য ব্যবহার করা সহজ হবে। এই ছবিতে হুইলচেয়ার ব্যবহারকারীর জন্য কিভাবে একটি পায়খানার অভিযোজন করতে হবে তা দেখাচ্ছে।

 তার জন্য অভিযোজন করা একটি পায়খানার ছাউনিতে হুইলচেয়ারসহ একজন নারী
ছাউনিটি যথেষ্ট বড় যাতে একটি হুইলচেয়ার সেখানে ঢুকতে পারে
শব্দ করার জন্য ঘন্টা বা অন্য কোন কিছু, যদি সাহায্যের প্রয়োজন হয়
বসায় সহায়তা করতে পিঠে হেলান দেবার জায়গা
হুইলচেয়ার থেকে পায়খানা বসা সহজ করার জন্য হাতল
পায়খানার আসন এবং হুইলচেয়ার একই স্তরে
সহজ প্রবেশগম্যতার জন্য চওড়া দরজা বাইরের দিকে খোলে
টানার জন্য দড়িসহ দরজার হাতল
পায়খানায় যাবার পথ সমতল এবং ঘর থেকে সেখানে যাওয়া সহজ
মনে রাখবেন, প্রতিবন্ধিতাযুক্ত একজন ব্যক্তির অন্য যে কারো মতোই একই ধরনের একান্ততা প্রয়োজন আছে এবং তার প্রয়োজনীয় একন্ততা তার পাওয়া উচিত।


এই পাতাটি হালনাগাদ করা হয়েছে: ২২ সেপ্টে ২০১৯