Hesperian Health Guides

কার টীকা প্রয়োজন এবং কখন?

প্রতিটি অঞ্চল, দেশ, এমনকি একটি দেশের মধ্যে প্রতিটি জেলার কখনও কখনও প্রয়োজনীয় টীকার নিজস্ব তালিকা থাকতে পারে:

  • কোন কোন টীকা প্রায় সকলকেই দেয়া হয়—ছোট শিশু, বড় শিশু, এবং প্রাপ্ত বয়স্ক। বড় শিশু বা প্রাপ্তবয়স্ক যারা ছোট শিশু থাকাকালীন টীকা দেয়া থেকে বাদ পড়েছে তারা হয়তো পরবর্তীতে এগুলো নিতে পারে।
  • কোন কোন টীকা শুধুমাত্র নির্দিষ্ট এলাকার জন্য উপকারী এবং শুধুমাত্র সেখানে যারা বাস করে বা সেখানে বেড়াতে গেছে তাদের দেয়া হয়।
  • কোন কোন টীকা সকলের জন্য প্রয়োজনীয় নয় কিন্তু নির্দিষ্ট দলের জন্য সুপারিশ করা হয়, যেমন গর্ভবতী নারী, স্বাস্থ্যকর্মী, বা বয়স্ক ব্যক্তি।
  • যখন কোন অঞ্চলে একটি রোগ নতুন দেখা যায়, তখন সাধারণতঃ প্রত্যেকেরই টীকা নেবার প্রয়োজন হবে।
একজন নারী কথা বলছে
আমার সংস্কৃতিতে সকলেই পরিবার। আমাদের শিশুদেরকে প্রতিষে দেয়ার ধক মাধ্যমে আমরা এখন সকলকে রক্ষা করি এবং ভবিষ্যত প্রজন্মকেও সাহায্য করি।

নিয়মিত টীকা কোলের শিশু এবং বড় শিশুদের রক্ষা করে

স্বাস্থ্যকর্মীরা একটি বাচ্চাসহ একজন পুরুষ ও একজন নারীর সাথে কথা বলছে।
শিশুটি ভালভাবেই বেড়ে উঠছে। তাকে সুস্বাস্থ্যে রাখতে আজকে আমরা তাকে তার পরবর্তী টীকা দেব।

স্বাস্থ্য কর্মীরা শিশুদেরকে তাদের জীবনের প্রথম বছরে বেশ কয়েকবার পরীক্ষা করে। এই সময়গুলোতেই তারা বেশীরভাগ টীকাগুলো দিয়ে থাকে। কোন ধরনের এবং কখন প্রতিটি টীকা দিতে হবে তা আপনার দেশের স্বাস্থ্য সুপারিশের উপর নির্ভর করবে।

ছোট শিশু বা বড় শিশুদেরকে স্বাস্থ্যবান রাখতে টীকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু রোগ প্রতিরোধ করে এমন বসবাসের অবস্থাও তেমন গুরুত্বপূর্ণ। নিরাপদ পানীয় জল, ভাল পয়ঃপ্রণালী, শিশুর জীবনের কমপক্ষে প্রথম ৬ মাস বুকের দুধ খাওয়ানো, এবং পরিমাণ মতো পুষ্টিকর খাবার খাওয়া অনেক অসুস্থ্যতা রোধ করবে। (জল ও পয়ঃপ্রণালী: সুস্বাস্থ্যে থাকার চাবিকাঠি এবং ভাল খাবার ভাল স্বাস্থ্য তৈরী করে অধ্যায়গুলো দেখুন)।

শৈশব পরবর্তী সময়ে প্রতিরক্ষা দীর্ঘস্থায়ী করতে বা যেহেতু শিশু অবস্থায় তারা তাদের সকল টীকা গ্রহণ করেনি তাই বয়স্কদের টীকা এবং টীকার কার্যকারিতা বৃদ্ধিকারী মাত্রা দেয়া হয়।

প্রতিটি দেশের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ নবজাতক ও শিশুদের জন্য টীকা দেবার একটি সময়সূচীর সুপারিশ করে। এতে কোন টীকা একসাথে এবং কোন বয়সে দেয়া হয় তা দেখানো হয়েছে। যখন ২টি টীকা একত্রে দেয়া যায় না বেশীরভাগ সময়েই তার কারণ হলো এগুলো একই সময়ে দেহের মধ্যে প্রবেশ করালে ততো ভাল কাজ করে না।

বয়স অনুযায়ী টীকার একটি সময়সূচীর সামনে দাঁড়ানো একজন নারী।
টীকার সময়সূচী বেশীরভাগ সময়ই এটির মতো দেখায়, যদিও প্রতিটি শ্রেণীর টীকার ক্ষেত্রে বয়স হয়তো দেশ ভেদে ভিন্ন হবে। এছাড়াও সকল দেশই টীকার একই সমন্বয় ব্যবহার করে না এবং সকল টীকাই সকল জায়গায় প্রয়োজন হয় না। আপনি যেখানে থাকেন সেখানে কোনগুলোর সুপারিশ করা হয়েছে তা জানুন।

টীকা ও এইচআইভি

সাধারণভাবে, এইচআইভিযুক্ত শিশু ও প্রাপ্ত বয়স্কদের অন্যান্য ব্যক্তিদের মতোই একই টীকার প্রয়োজন হয়। কোন কোন ক্ষেত্রে এইচআইভিযুক্ত একটি শিশু বা একজন প্রাপ্ত বয়স্কের হয়তো একটি অতিরিক্ত মাত্রা নেবার প্রয়োজন হতে পারে, যেমন হামের টীকার ক্ষেত্রে হয়।

কয়েকটি টীকার ক্ষেত্রে (বিসিজি, এমএমআর, ওপিভি) নিশ্চিত হোন যেন স্বাস্থ্য স্থিতিশীল থাকে এবং টীকা শুরু করার আগে এইচআইভির চিকিৎসা শুরু করা হয়। এইচআইভির চিকিৎসার ফলে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী হয় এবং এর ফলে টীকা আরও ভালভাবে কাজ করে।

বিসিজি টীকার ক্ষেত্রে মায়ের এইচআইভি থাকা সত্বেও জন্মের পর শিশুকে দেয়া নিরাপদ। তবে শিশুটি যদি বড় শিশু হয় এবং তার এইচআইভি থাকে তবে প্রথমে তার এইচআইভির চিকিৎসা করা উচিত।

একজন গর্ভবতী নারীকে একজন স্বাস্থ্যকর্মী ইঞ্জেকশান দিচ্ছে
মেয়ে হিসেবে সম্পূর্ণভাবে টীকা নেয়া হলে পরবর্তীতে গর্ভধারণ নিরাপদ হবে। আপনি যদি গর্ভধারণ করতে চান তবে একজন স্বাস্থ্যকর্মীর সাথে কথা বলে নিশ্চিত হোন যে আপনার সকল টীকা নেয়া হাল নাগাদ রয়েছে।

টীকা এবং গর্ভধারণ

টীকা মা ও বেড়ে ওঠা শিশুর স্বাস্থ্য রক্ষা করে। এছাড়াও গর্ভবতী নারী টীকায় থাকা এ্যন্টিবডি তার গর্ভে থাকা শিশুর মধ্যে সঞ্চালিত করে যা জন্মের পর শিশুটিকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। নবজাতকরা তাদের জীবনের প্রথম সপ্তাহ বা মাসগুলোতে এতো ছোট থাকে যে তারা কোন কোন টীকা নিতে পারে না।

এই তথ্য মেয়েদের পিতামাতা এবং গর্ভবতী নারীদের সাথে বিনিময় করুন:

  • টীকা একটি মেয়ে বা নারীর গর্ভধারণ করার ক্ষমতায় কোন প্রভাব ফেলে না।
  • বেশীরভাগ টীকাই গর্ভধারণকালীন নেয়া নিরাপদ।
  • শিশু অবস্থায় মেয়েরা যদি তাদের সকল টীকা নিয়ে থাকে তবে গর্ভধারণের সময় কম সংখ্যক টীকা প্রয়োজন হবে। রুবেলার (জার্মান হাম) টীকা একটি খুব ভাল উদাহরণ যেটি শিশুদের বা গর্ভধারণের আগে যুবতীদের দেয়া উপকারী কারণ গর্ভবতী মায়ের রুবেলা হলে তা শিশুর জন্য খুবই বিপজ্জনক।
  • প্রত্যেকেরই টিটেনাসের টীকা কয়েক বছর ধরে নেয়া উচিত, হয় একটি একক টীকা হিসেবে বা একটি সমন্বিত টীকার অংশ হিসেবে। একজন নারী যদি সম্প্রতি টিটেনাসের বিরুদ্ধে কোন টীকা না নিয়ে থাকে তবে তার গর্ভধারণকালীন একটি নেয়া প্রয়োজন হবে। এই টীকা নবজাতকের মধ্যে বিপজ্জনক টিটেনাস সংক্রামণ রোধ করে যা শিশুর জন্মের সময় অপরিশুদ্ধ একটি যন্ত্র ব্যবহার করার ফলে ঘটে থাকে।
  • আপনার দেশে স্বাস্থ্য কর্মীরা হয়তো গর্ভধারণকালীন অন্যান্য টীকার সুপারিশ করতে পারে, যেমন হুপিং কাশি বা ফ্লুয়ের টীকা।


 একটি টীকার তালিকা।

কোন কোন টীকা গর্ভধারণের সময়ে এড়িয়ে যাওয়া হয়, যেমন বিসিজি বা হামের টীকা। টীকা দেবার সময় নারীটি গর্ভধারণ করবে কিনা তা তাকে প্রথমে জিজ্ঞাসা করুন।

তথ্য লিপিবদ্ধ করুন

টীকার কার্ড বা কাগজ চেয়ে নিন এবং সংরক্ষণ করুন যেখানে টীকার নাম এবং তারিখ লেখা আছে। বিদ্যালয়ে ভর্তি হবার জন্য শিশুদের প্রায়ই এই লিপিবদ্ধ তথ্য প্রয়োজন হবে এবং প্রাপ্তবয়স্কদের তা প্রয়োজন হবে তাদের কাজ ও ভ্রমণের জন্য, আর কোন কোন টীকা তারা ইতোমধ্যেই নিয়েছে এবং কোনগুলো তাদের এখনো নেয়া প্রয়োজন তা স্বাস্থ্য কর্মীদেরকে দেখানো জন্য। আপনার ক্লিনিকে যদি তাদের কাছে কোন কার্ড না থাকে তবে আপনি নিজেই তথ্য সংরক্ষণ করুন এবং যে ব্যক্তিটি টীকা দিয়েছে তাকে তথ্যগুলো পূরণ করে স্বাক্ষর করতে বলুন।



এই পাতাটি হালনাগাদ করা হয়েছে: ২৭ জানু ২০২২