Hesperian Health Guides

যথেষ্ট পরিমাণ খাওয়া

সবারই যথেষ্ট পরিমাণে খাবার খাওয়া উচিত। যথেষ্ট পরিমাণে খাবার খাওয়ার মাধ্যমে আমাদের দেহ ও মন এদের প্রতিদিনকার চাহিদামত শক্তি ও বল পায়।

সপ্তাহের পর সপ্তাহ বা মাসের পর মাস খাবারের অভাব মারাত্মক ও দীর্ঘস্থায়ী স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি করবে। শিশু, বয়স্ক ব্যক্তি, অসুস্থ্য ব্যক্তি, এইচআইভি আক্রান্ত ব্যক্তি, এবং গর্ভবর্তী নারীরা খাবারের অভাব হলে সবথেকে বেশী (ও অতি দ্রুত) ভোগান্তিতে পরবে। তাই যে সমস্ত ব্যক্তিদের নিজেদের যত্ন নেয়ার সামর্থ্য নেই তাদের জন্য যেন যথেষ্ট পরিমাণ খাবার থাকে তা নিশ্চিত করুন।

শিশুদের বিশেষভাবে যথেষ্ট পরিমাণে খাবার প্রয়োজন

অন্য যে কারো থেকে শিশুদের প্রতিদিন যথেষ্ট পরিমাণে খাবার প্রয়োজন। শৈশবের শুরুতেই খাবারের অভাব হলে আকার ছোট হয়, রুগ্নতা বৃদ্ধি পায়, এবং শিক্ষা গ্রহণ কঠিন হয় এবং এই সমস্যাগুলো সারা জীবন থাকে।

শিশুরা যেন যথেষ্ট পরিমাণে খাবার খেতে পায় তা নিশ্চিত করতে:

  • প্রথম দাঁত বের হওয়ার আগ পর্যন্ত — প্রায় ৬ মাস — শুধুমাত্র বুকের দুধ দিন, অন্য কোন খাবার বা কোন পানীয় নয়।
  • আপনি যদি ৬ মাস পর খাবার খাওয়ানো শুরু্ও করেন, তবু বুকের দুধ খাওয়ানো বন্ধ করবেন না। সবথেকে ভাল হয় যদি দু’বছর ধরে বা তার থেকে বেশী সময় ধরে বুকের দুধ খাওয়ান। বুকের দুধ এবং খাবার দেয়ার মাধ্যমে শিশুটির বেড়ে ওঠা ও সমৃদ্ধ হয়ে ওঠার জন্য যা প্রয়োজন তার কখনওই কোন অভাব না হওয়া নিশ্চিত করে।
  • আপনি যখন খাবার দিতে শুরু করবেন তখন দিনে কয়েকবার অল্প অল্প করে দিন। তারপর পরিমাণ আরও বাড়িয়ে বেশী করে খাবার দিন। একটি দুই বছরের শিশুর দিনে কমপক্ষে ৪ বার খাওয়া উচিত। যে শিশুটি এখনও বুকের দুধ পান করে তার থেকে যে শিশুটি বুকের দুধ পান করা বন্ধ করেছে তার বেশী খাবার খাওয়া প্রয়োজন।
  • ছোট শিশুদেরকে তাদের নিজেদের বাটিতে করে খাবার দিন। তারপর দেখুন যে তারা তাদের নির্দিষ্ট পরিমাণ খাবার খেয়েছে কিনা।
  • মেয়েদেরকে ঠিক ছেলেদের সমপরিমাণই খাবার দিন। স্বাস্থ্যবান হতে ও শক্তিশালী হয়ে গড়ে উঠতে মেয়ে ও ছেলেদের একই পরিমাণে খাবার প্রয়োজন।
  • জলপূর্ণতার দ্রবণ এবং অন্যান্য তরল পদার্থ দ্বারা তাতক্ষণিক ডাইরিয়ার চিকিৎসা করুন (পেটে ব্যথা, ডাইরিয়া, ও কৃমি অধ্যায়ের পৃষ্ঠা ২২ দেখুন)।
  • শিশুদের কৃমি থাকলে তাদেরকে মেবেনডাজোল দ্বারা চিকিৎসা করুন। অনেক শিশুরই যদি কৃমি থাকে তবে সংক্রামণ রোধ করতে আপনার এলাকার সকল শিশুদেরকেই প্রতি ৬ মাস পর পর মেবেনডাজোল দিন।


বিভিন্ন বয়সে খাবারের জন্য শিশুদের ভিন্ন ভিন্ন চাহিদা থাকে। বাচ্চা ও ছোট শিশুদের খাওয়ানো সম্পর্কে আরও দেখুন।



এই পাতাটি হালনাগাদ করা হয়েছে: ৩০ জুলাই ২০২১