Hesperian Health Guides

জাপানী এনসেফালাইটিস

কিউলেক্স মশার মাধ্যমে জাপানী এনসেফালাইটিস ছড়ায়। এই মশাগুলো মাঝারি আকৃতির, বাদামী, এবং পেটের কাছে এর সাদা সাদা দাগ আছে। এগুলো সাধারণতঃ সন্ধার দিকে অন্ধকার হয়ে যাবার পর কামড়ায়। দিনের বেলায় এগুলো ঘর বা গাছপালার আশে পাশে অন্যান্য কাঠামোর মধ্যে বা চারপাশে বিশ্রাম নেয়। জাপানী এনসেফালাইটিস বেশীরভাগ সময়েই এশিয় ও পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় লোকেদেরকে আক্রান্ত করে। বেশীরভাগ মানুষই সঙ্কটজনকভাবে আক্রান্ত হয় না, যদিও গুরুতরভাবে আক্রান্ত জাপানী এনসেফালাইটিসের কারণে মস্তিষ্কের ক্ষতি এবং এমনকি মৃত্যুও হতে পারে।

জাপানী এনসেফালাইটিসের লক্ষণ

জাপানী এনসেফালাইটিস আক্রান্ত ব্যক্তির হয়তো কোন লক্ষণ নাও দেখা যেতে পারে বা শুধুমাত্র হয়তো জ্বর, ডাইরিয়া, বমি, মাথা ব্যথা, বা দুর্বলতার মতো লক্ষণগুলো দেখা যাবে যেগুলো অন্যান্য অনেক অসুস্থ্যতার ক্ষেত্রেই দেখা যায়।

চিকিৎসা আপনাকে ভাল অনুভব করতে সাহায্য করতে পারে। কিন্তু বিপদ চিহ্নযুক্ত যে কোন ব্যক্তিকে দ্রুত হাসপাতালে নিন।

গুরুতর জাপানী এনসেফালাইটিসের বিপদ চিহ্ন
  • খিঁচুনী
  • পক্ষাঘাত (নড়াচড়ায় অক্ষম)
  • জ্ঞান হারায়
প্রতিরোধ

টীকা জাপানী এনসেফালাইটিস রোধ করে। এছাড়াও মশার কামড় এড়িয়ে চলুন এবং মশার বংশবৃদ্ধি রোধ করুন



এই পাতাটি হালনাগাদ করা হয়েছে: ২৩ সেপ্টে ২০১৯