Hesperian Health Guides

পীত জ্বর

পীত জ্বর আফ্রিকা ও দক্ষিণ আমেরিকায় বেশী দেখা যায়। গ্রীষ্মপ্রধান অঞ্চলের বৃষ্টি প্রধান জঙ্গলে বসবাসকারী মানুষদের জঙ্গল পীত জ্বর হতে পারে, কিন্তু সবথেকে সাধারণ যে ধরনটি দেখা যায় তাকে শহুরে পীত জ্বর বলা হয়।

বেশীরভাগ লোকই সম্পূর্ণভাবে পীত জ্বর থেকে নিরাময় লাভ করে এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে, যার মানে হলো যে তাদের আর পীত জ্বর হবে না। অল্প সংখ্যক ব্যক্তির গুরুতর পীত জ্বর হয়, কিন্তু চিকিৎসা করলে তারাও সাধারণতঃ নিরাময় হয়।

পীত জ্বরের লক্ষণ
NWTND mosq Page 12-1.png
  • জ্বর
  • শীত শীত লাগা
  • পেশীতে ব্যথা (বিশেষ করে পিঠে ব্যথা)
  • মাথা ব্যথা
  • ক্ষুধা মন্দা
  • গা গুলানো এবং বমি
  • নাড়ী ধীরে চলা
  • আলোতে চোখের স্পর্শকাতরতা
  • ত্বক, চোখ, জিহ্বায় লালচে ভাব


বেশীরভাগ মানুষের জন্যই এই অসুস্থ্যতা ৩ বা ৪ দিন পর চলে যায়।

চিকিৎসা আপনাকে ভাল অনুভব করায় সাহায্য করতে পারে। কিন্তু বিপদ চিহ্নের দিকে লক্ষ্য রাখুন।

গুরুতর পীত জ্বরের লক্ষণ

গুরুতর পীত জ্বরে ভাল অনুভব করার কয়েক ঘন্টা বা প্রথম দিনের পর উচ্চ মাত্রার জ্বর নীচের কোন কোন চিহ্নসহ ফেরত আসতে পারে:

  • কামলা (চোখের সাদা অংশ বা হালকা রঙয়ের ত্বক হলুদ হয়ে যায়)
  • তলপেটে ব্যথা
  • মুখ, নাক, বা চোখ থেকে রক্তক্ষরণ
  • বমি
  • বমি বা মলে রক্ত (পেটের ভিতরে রক্তক্ষরণের কারণে)


এই বিপদচিহ্নগুলোর কোন একটি যদি দেখা যায় তবে ততক্ষণাৎ কোন একটি হাসপাতালে যান।

প্রতিরোধ

টীকা পীত জ্বর রোধ করে (টীকার অধ্যায়ে দেখুন। এছাড়াও মশার কামড় রোধ করুন এবং মশার বংশ বিস্তার রোধ করুন



এই পাতাটি হালনাগাদ করা হয়েছে: ২৩ সেপ্টে ২০১৯